ফ্রি অথবা প্রিমিয়াম গ্রাফিক রিসোর্স – কখন দরকার? কেন দরকার??

আমাদের অনেকেরই গ্রাফিক্সের বিভিন্ন সংগ্রহ দরকার হয় বিভিন্ন প্রয়োজনে। যেমন আমি যদি মিউজিক সংক্রান্ত কোন ফ্লায়ার ডিজাইন করতে যাই স্বাভাবিকভাবেই বিভিন্ন স্পীকার এবং ডিসকো বলের ছবি মনের কল্পনায় ভেসে উঠবে। আবার কষ্ট করে একটা বিজনেস কার্ড ডিজাইন করলাম, ক্লায়েন্ট কে যদি ইমপ্রেস করতে না পারি সুন্দর একটা মকআপ না থাকার কারনে, তাহলে সেটা দুঃখজনক-ই বটে। এরকম বিভিন্ন মকআপ কিংবা বিভিন্ন ছবি/পিএনজি/পিএসডি/ব্রাশ/প্যাটার্ন/টেক্সচার/থ্রিডি রেন্ডার/প্লাগ-ইনস দরকার পড়ে প্রায়ই। এগুলা সংগ্রহে রাখাও একজন সচেতন গ্রাফিক ডিজাইনারের কর্তব্য।

আমি এই ডকুমেন্টে কোন লিংক দিবনা, দুয়েকটা লিংক হয়তো তবুও প্রয়োজনে চলে আসতে পারে। এই ডকুমেন্টের মূল উদ্দেশ্য হল, কোন ধরনের রিসোর্স সংগ্রহ করবেন? কেন ফ্রি রিসোর্সের চেয়ে প্রফেশনাল রিসোর্সকে বেশি গুরুত্ব দিবেন? ইত্যাদি…!

গ্রুপে অনেকেই ফ্রিল্যান্সিং এর সাথে জড়িত এবং এদের মধ্যে অনেকেই মাসে ১০০ ডলারের উপরে আয় করেন। অনেকে বিভিন্ন ডিজাইনের জন্য ফ্রি মকআপ খুজেন, খুজতে খুজতে একেকজনের জান বের হয়ে যায় তবুও সামান্য ক’টা টাকা খরচ করে প্রফেশনাল কিছু কিনতে চাননা। যারা ফ্রিল্যান্সিং করেন, আচ্ছা আপনাদের মধ্যে কি প্রফেশনালিজম জিনিসটা কাজ করেনা? কেন সবসময় ফ্রি জিনিসের পিছনে ছুটেন? ফ্রি, ফ্রি-ই, তাতে কখনোই আপনি প্রফেশনালিজম পাবেন না। ধরা যাক, আপনার একটা বিজনেস কার্ড মকআপ দরকার, নেটে সার্চ দিয়ে আপনি ফ্রি অনেক মকআপ টেমপ্লেট পাবেন, এদের মধ্যে দুয়েকটা যে প্রফেশনাল হবেনা তা নয়, যদি প্রফেশনাল হয় তাহলে তো কথাই নেই, ওটা দিয়েই চালিয়ে যেতে পারেন; কিন্তু প্রফেশনাল না হলে, কষ্ট করে ৫-৬ ডলার দিয়ে প্রফেশনাল কিছু কিনতে আপত্তি কোথায় যেখানে ৫-৬ ডলারের বিনিময়ে আপনি ক্লায়েন্ট কে খুশি করতে পারছেন, এভাবে প্রচুর কাজ পাচ্ছেন এবং করছেনও। প্রফেশনাল প্রেজেন্টেশনের কারনে অনেক সাধারন ডিজাইনও অনেক সুন্দর লাগে, অনেক প্রফেশনাল দেখায়। আপনি মাসে ১০০ ডলারের উপরে ইনকাম করেন কিংবা হোক সেটা ৫০ ডলার, প্রত্যেক মাসে একটা-দু’টো প্রফেশনাল রিসোর্স কিনলে সমস্যা কোথায়?

গ্রাফিকরিভারের এই মকআপ লিংকটি দেখুন, শত শত প্রফেশনাল প্রডাক্ট মকআপ আপনি খুবই কম দামে পাচ্ছেন। এগুলো ব্যবহার করে ক্লায়েন্টকে খুব সহজেই ইমপ্রেস করতে পারছেন/পারবেন। আর ফ্রি মকআপ কিন্তু বেশি ব্যবহার করা হয় যার ফলে এগুলো খুবই কমন হয়ে যায় সব জায়গায় দেখা যায়, কিন্তু এই মকআপ গুলো টাকা দিয়ে কিনতে হয়, যাদের কাজ প্রফেশনাল, ক্লায়েন্টকেও প্রফেশনালি নিজের ডিজাইন উপস্থাপন করতে চায়, তারাই কিন্তু এগুলো কিনে কিংবা নিজের প্রয়োজনমত বানিয়ে নেয়।

ঠিক একই ভাবে আপনার প্রফেশনাল মডেল দরকার, আপনি বিভিন্ন ফটোগ্রাফি সাইট থেকে আপনার প্রয়োজন মত ছবি কিনে নিন। প্রফেশনাল মডেল কিংবা প্রফেশনাল স্টক ইমেজ গুলো আপনার ডিজাইনে সৌন্দর্য্যের মাত্রা বাড়িয়ে দেবে বহুগুন আপনি সেটা বিশ্বাস করুন আর নাই করুন। এগুলোর দামও তত বেশি নয়, একটু বেশি করে কিনলে (মনে করুন একসাথে ১০০ বা ততোধিক ছবি কিনলে) একেকটা ছবির দাম পড়বে আনুমানিক ২০-৩০ সেন্ট এর মত। এই স্টক মিডিয়াগুলো (স্টক মিডিয়া বলতে স্টক ফটোগ্রাফি, স্টক মিউজিক ইত্যাদি বিভিন্ন আলাদা আলাদা রিসোর্স বোঝানো হয়েছে) খুবই হাই রেজুলুশনে পাবেন আপনি, যেখানে ফ্রিতে খুব একটা ভাল রেজুলুশন পাবেন না। তাছাড়া প্রফেশনাল লাইটিং, দামি ক্যামেরা, দামি লেন্স এবং প্রচুর অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ফটোগ্রাফার ইত্যাদির সমন্বয়ে আপনি খুবই দামি দামি ফটোগ্রাফি পাচ্ছেন খুব খুব খুব কম দামে। ঠিক একই কথা অন্যান্য স্টক মিডিয়ার ক্ষেত্রেও, অর্থাৎ সবক্ষেত্রেই আপনি সুপার প্রফেশনাল জিনিস পাচ্ছেন আপনার প্রফেশনাল ডিজাইন/মিডিয়া সাজানোর জন্য এবং সেটা আপনার ক্যারিয়ারকে আরও মজবুত করে তুলবে। আমার প্রায় ডিজাইনেই আমি প্রফেশনাল মকআপ কিংবা প্রফেশনাল স্টক ইমেজ ব্যবহার করি। এবং ক্লায়েন্টকে আকৃষ্ট করতে সেটা যে কি পরিমান কাজে দেয় তা আমি খুব ভাল করেই জানি।

এখানে একটা ব্যাপার উল্লেখ করা উচিত যে, যে কেউ ইচ্ছে করলে প্রিমিয়াম/প্রফেশনাল অনেক কিছুই পাইরেসি করে ডাউনলোড করতে পারেন। তাদের প্রতি একটাই অনুরোধ, দয়া করে পাইরেসি করবেন না, এতে করে আপনি যে নিজের পায়ে নিজেই কুড়াল মারছেন সেটা আপনি হয়ত কখনোই বুঝবেন না, কিংবা বুঝলেও অনেক দেরিতে বুঝবেন।

প্রফেশনাল রিসোর্স ব্যবহার করলেই যে আপনার ডিজাইন প্রফেশনাল হয়ে যাবে তাও কিন্তু নয়, আপনার মূল ডিজাইন অবশ্যই প্রফেশনাল হতে হবে, না হলে আখেরে কাজের কাজ কিছুই হবেনা। আমাদের দেশে মানুষ যখন ৩০০ টাকা দিয়ে একজোড়া জুতো কিনে, সে সবসময় চেষ্টা করে কিভাবে সেই জুতো জোড়াকে তিনমাস, ছয়মাস কিংবা একবছর নিবে। এখানে দেখুন সে মূলত তার কষ্টের টাকাটা কড়ায় গন্ডায় কাজে লাগাতে চাচ্ছে। ঠিক সেইভাবে দেখুন ফটোশপ ফ্রিতে (পাইরেসি) পাওয়ার কারনে আমাদের ডিজাইনারদের অবস্থা কেমন। দুয়েকজন যাও বা প্রফেশনালিজম আয়ত্ব করছেন সেটাও ডিজাইনের প্রতি তাদের মারাত্মক রকমের প্যাশন থাকার কারনে। আমাদের দেশে ডিজাইনের দাম কম কেন বলতে পারেন? ডিজাইনিং জবের স্যালারি এত কম কেন বলতে পারেন?? জ্বি, ফ্রিতে কিংবা নামমাত্রমূল্যে (৫০/৬০টাকার ডিভিডি) পাওয়ার কারনে ডিজাইনের দাম নেই বললেই চলে। যদি উন্নত বিশ্বের মত আমাদের বিভিন্ন সফটওয়্যার কিনে কাজ করতে হত তাহলে আমাদের আর আউটসোর্সিং করতে হত না, দেশের কাজ করেই আমরা লাখ লাখ টাকা কামাতে পারতাম। কেনই বা নয়, আপনি ফটোশপ-ইলাস্ট্রেটর দেড় লাখ টাকা দিয়ে যদি কিনতেন তাহলে একটা বিজনেসকার্ডের জন্য কত টাকা নিতেন? বিশ-পচিশ হাজার টাকার নিচে তো নয়ই, তাই না? শুধু আপনি না, এমন হলে কেউই এর চেয়ে কমে কাজ করত না।

প্রসঙ্গ ছেড়ে অনেক দূরে চলে এসেছি, কথাটা শেষ করি। প্রফেশনাল স্টক কিনুন যেমন বিভিন্ন মডেলিং ফটোগ্রাফি, অন্যান্য ফটোগ্রাফি (ফুড, ফ্রুট, আর্কিটেক্সচার, ব্যাকগ্রাউন্ড, ভেহিকল… ইত্যাদি), বিভিন্ন মকআপ, ব্রাশ, প্যাটার্ন, থ্রিডি রেন্ডার, পিএসডি টেমপ্লেট ইত্যাদি। বিশ্বাস করুন আর নাই করুন, আপনার কষ্টের টাকা দিয়ে কিনেছেন শুধুমাত্র সেই কারনেই আপনার ডিজাইন আপনার অন্তর থেকে বেরিয়ে আসবে। আপনার মনে অটোমেটিক একটা প্রফেশনালিজম চলে আসবে যেটা আপনি আস্তে আস্তে বিভিন্ন জিনিস কেনার পর অনুভব করবেন। আপনার ভিতর থেকেই ডিজাইনের নতুন নতুন আইডিয়া বের হতে থাকবে যেগুলো আপনি আগে হাজারবার চিন্তা করলেও আসতো না। কারন মাইন্ডে প্রফেশনালিজম ব্যাপারটা সেট হয়ে গেছে। ব্যাপারটা একেবারেই আত্মিক। আপনার যদি ডিজাইনিং ভাল না লাগে তাহলে দেশের সেরা ডিজাইনারও আপনাকে ট্রেইনিং দিয়ে প্রফেশনাল এবং সৃজনশীল কিছু তৈরি করাতে পারবেন না, ব্যাপারটা সেরকমই। আপনার অন্তরে যদি একবার প্রফেশনালিজম এসে যায় তাহলে ট্রেইনার লাগবে না, প্র্যাকটিস করতে করতেই সব ঘটনা ঘটে যাবে।

এবার আসি যারা ফ্রিল্যান্সিং করেন না, কিংবা নতুন ডিজাইন শিখছেন তারা কি করবেন? পাইরেসি করতে তো আমি মানা-ই করে দিলাম তাহলে? তাহলে আর কি? যেহেতু আপনারা শিখছেন আপনাদের প্রিমিয়াম স্টক ইমেজ/মকআপ ইত্যাদি না হলেও চলে। আপনি ফ্রি মকআপ, ফ্রি স্টক ইমেজ দিয়েই কাজ শিখুন/করুন না, সমস্যা কোথায়? যখন কারো পেইড কাজ করবেন তখনও ফ্রি জিনিস দিয়েই কাজ চালিয়ে নিন, এভাবে কয়েকটা কাজ করার পর যখন আপনার কিছু টাকা/ডলার জমবে তা থেকে আপনার প্রয়োজনমত দুয়েকটা জিনিস কিনে নিন, সমস্যা দেখছিনা কোথাও।

বিভিন্ন ফ্রি রিসোর্স এবং বিভিন্ন প্রফেশনাল রিসোর্স কোথায় পাওয়া যায় কিংবা কিভাবে কিনতে হয় তা নিয়ে লিখার প্রয়োজন মনে করছিনা, আপনারা প্রফেশনাল লাইনে আছেন কিংবা প্রবেশ করছেন, কোনকিছু কিভাবে গুগলে সার্চ দিয়ে বের করতে হয় এটুকু আপনাদের ভালই জানা আছে কিংবা জেনে নেয়া উচিত। মুখে তুলে কেউ খাইয়ে দিবেনা, নিজের হাত দিয়েই খেতে হবে।

বিঃদ্রঃ আমি বিভিন্ন স্টক মিডিয়া কেনার জন্য বলেছি কিন্তু যেটা দিয়ে ডিজাইন করা হয় সেটাই এখনো কিনতে বলিনি অর্থাৎ ফটোশপ-ইলাস্ট্রেটর কিনার কথা বলিনি। আসলে যদি এটা কিনতে পারেন তাহলে আপনি নিজেই টের পাবেন আপনার ভিতর থেকে কিভাবে ডিজাইন বেরিয়ে আসছে। আমি নিজেও আশা করছি বছর দুয়েকের মধ্যেই আমার প্রয়োজনীয় সফটওয়্যারগুলো কিনে নেব। আপাতত যেহেতু সম্ভব হচ্ছে না তাই কেনার পরামর্শ দিচ্ছি না তবে যারা মাসে ১০০ ডলার বা ততোধিক আয় করেন তাদের কে অবশ্যই অবশ্যই বিভিন্ন প্রিমিয়াম প্রডাক্ট/রিসোর্স কিনার পরামর্শ দিচ্ছি, কারন এগুলোর দাম খুবই কম। আপনার সাধ্যের মধ্যেই যখন, কেন চুরি করবেন??

লেখক সম্পর্কে

শিমুল

নেশায় ও পেশায় গ্রাফিক ডিজাইনার। তবে নেশাটা ছড়িয়ে গেছে ফটোগ্রাফি, থ্রিডি মডেলিং, লেখালেখি এবং ঘুরাঘুরিতেও। কাজ থাকুক আর নাই থাকুক সারাদিন ওয়েবসাইট ব্রাউজ করি। এছাড়া মাঝে মাঝে গ্রাফিওরাতে আড্ডা দেই।

Recent Posts

Recent Comments

Archives

Categories

Pin It on Pinterest

Shares
Share This